আপনার ওয়েব সাইট কি স্মার্ট ডিভাইস উপযোগি?

08/23/2015

একটু আন্দাজ করুন তো, বিশ্বে কি পরিমান স্মার্টফোন বা ট্যাব প্রতিদিন ব্যবহার করা হয়? সংখ্যাটা প্রায় ১৯০০ মিলিয়নের কাছাকাছি! ২০১৪ সালের গোড়ার দিকেই বিশ্বে ডেস্কটপ কম্পিউটারের সংখ্যাটাকে ছাড়িয়ে যায় স্মার্টফোন। আর এই সংখ্যাটা ক্রমে বেড়েই চলেছে। এক সমীক্ষায় দেখা গেছে ই-কমার্স সাইটগুলোর মোট ভিজিটরের প্রায় ৫০.৩ শতাংশই স্মার্টফোন বা ট্যাব ব্যবহারকারী। তাই আপনার ওয়েবসাইটটিকে এমন ভাবে ডিজাইন করতে হবে যেন তা সব ধরণের ডিভাইস থেকে ব্যবহার করা সহজ হয়।

আপনার তৈরি করা রেসপন্সিভ ওয়েবসাইটকে ইউজারের কাছে আরেকটু ইউজেবল করতে পারেন নিচের টিপসগুলো ব্যবহার করে।

বাটনের সাইজ একটু বাড়িয়ে দিনধরা যাক আপনার ই-কমার্স সাইট থেকে ইউজার একটা পণ্য কিনতে চান। এ জন্য “Buy” বাটনে ট্যাপ করতে হবে। এই বাটনের সাইজ যদি তুলনামূলক ছোট হয় তাহলে কিন্তু ইউজারকে পণ্য কেনার জন্য রীতিমত যুদ্ধ করতে হবে! কি দরকার আছে? বাটন বা কোন একশন কলের ক্ষেত্রে মার্জিন আর সাইজটা দিন না একটু বাড়িয়ে! ইউজার এক্সপেরিয়েন্সটা হবে চমৎকার!

ইউজারকে বুঝিয়ে দিন যেএটা একটা লিংকঅর্থাৎ আপনার সাইটের কোন একটা লেখার মাঝে clickable ওয়েব লিংক থাকলে সেটা ইউজারকে বুঝিয়ে দিন যে এখানে ক্লিক করলে আরো কিছু তথ্য পাওয়া যাবে। লিংকটাকে নীল রঙ আর আন্ডারলাইন করে দিয়ে সহজেই এ কাজটা করা যায়। এছাড়াও যে কোন call to action এর ক্ষেত্রে ইউজারকে বুঝিয়ে দিতে হবে একশনের কথা। অর্থাৎ ইউজার যা চান তা তো দিতেই হবে, যা চান না কিন্তু পেলে ভাল লাগবে এমন বিষয়গুলোও তাকে দিতে হবে।

লেখার সাইজ হবে দরকার অনুযায়ী একটু বড়আপনার সাইটের কনটেন্টগুলো ইউজাররা অনেক সময় ধরে পড়বে এমন হলে ফন্টের সাইজ একটু বাড়িয়ে দিন। এতে ইউজারের চোখের উপর চাপ পড়বে না। এমন ব্যাকগ্রাউন্ড আর ফন্ট কালার দিন যেটা ইউজারের পড়ার ক্ষেত্রে উপযোগি। বেশি ছোট অক্ষরের লেখা বা ঠিক মত রঙের ব্যবহার না করা হলে দীর্ঘক্ষন সাইটটি ব্যবহার করলে চোখ বা মাথা ব্যথা হতে পারে। ইউএক্স এর অংশ হিসেবে সব বয়সী ও ক্ষীণদৃষ্টি সম্পন্ন মানুষদের কথাও মাথায় রাখতে হবে।

নেভিগেশন মেনুর মাঝে দিন পর্যাপ্ত প্যাডিংডেস্কটপ থেকে মাউসের কার্সরের মাধ্যমে খুব সূক্ষ্ম ভাবে ক্লিক করা গেলেও স্মার্টফোনের টাচপ্যাড কিন্তু ততটা সূক্ষ্ম ভাবে ব্যবহার করা যায় না। তাই নেভিগেশন মেনু বা ড্রপডাউন মেনুর প্যাডিং এর ক্ষেত্রে হোন যত্নবান। যেন প্রোডাক্ট লিস্টে ট্যাপ করতে গিয়ে ট্যাপ না পড়ে যায় কনটাক্ট আইটেমে!

পেজের চারপাশে একটু মার্জিন আর লেখার মাঝে দিন একটু ফাঁকা জায়গাসাইটের পেজগুলোতে এমন ভাবে মার্জিন দিন যেন মোবাইলের পুরো স্ক্রীন জুড়ে শুধু লেখা আর লেখা না থাকে। ডানে-বামে, উপরে-নিচে একটু করে মার্জিন রাখুন। আর প্রতিটা প্যারা বা ব্লকের মাঝেও একটু ‘হোয়াইট স্পেস’ রাখুন। এটা আপনার ইউজারের মনোযোগ ধরে রাখতে সাহায্য করবে। লেখাগুলো তিনি আনন্দের সাথে পড়তে পারবেন। বুঝতেও পারবেন অতি দ্রুত!

ফর্মের ফিল্ড সাইজ বাড়ান আর মাঝে সেইহোয়াইট স্পেসযে কোন ফর্ম এর ক্ষেত্রে যেমন রেজিস্ট্রেশন ফর্ম বা ইউজারের থেকে ফিডব্যাক নেয়ার ফর্ম এগুলোর ফিল্ডগুলোতে পর্যাপ্ত height-width রাখুন। দুইটা ইনপুট ফিল্ডের মাঝে পর্যাপ্ত জায়গা রাখুন। যেন দেখতে ভাল লাগে আর সহজে স্মার্টফোন থেকে ট্যাপ করা যায়।

ইউজার এক্সপেরিয়েন্সের ব্যাপারে খেয়াল রাখুন, ইউজারের চাহিদা বুঝার চেষ্টা করুন। অন্যান্য সাইট ব্রাউজ করার সময় নিজে যেই সমস্যাগুলোর সম্মুখীন হন সেগুলো নোট রাখুন। অন্তত সে সমস্যাগুলো যেন আপনার সাইটের ইউজাররা অনুভব না করেন।

কন্টেন্ট এনালিস্ট
টেকমরিচ
ফটো সোর্স – ভাইরালনভেল্টি