প্রাত্যহিক জীবনে কাজে আসে এমন কিছু Useful মোবাইল অ্যাপ

October 12, 2015

Smartphoneগুলোর সুবাদে জীবন এখন যেমন অনেক সহজ তেমনি বিড়ম্বনাময় যদি না থাকে প্রয়োজনীয় অ্যাপগুলোর সাথে সঠিক পরিচিতি। একটা সময় ছিল যখন মানুষ যোগাযোগের মাধ্যম হিসেবে ফোন ব্যাবহার শুরু করে। Technology এর নিত্যনতুন আবিষ্কারের ফলে ফোনের ব্যাবহার শুধু যোগাযোগের বা ফোন কলের মধ্যে সীমাবদ্ধ থাকেনি। এখন স্মার্টফোনে করা যায় অনেক কিছু! এসব স্মার্টফোনের সব কাজের জন্য এখন সকলেই নির্ভর করছেন নানা ধরনের অ্যাপসের ওপর।

স্মার্টফোনে প্রতিদিনের প্রয়োজনে লাগতে পারে এমন কয়েকটি অ্যাপসের কথা আমাদের সবার জানা উচিৎ:

Online Storage and File Share –

নিত্যদিন আমরা নানা ধরনের কাজ করি আর সেগুলোর জন্য দরকার হয় কাজ সেভ করে রাখা বা ব্যকআপ রাখা। আর এর জন্য স্মার্টফোনগুলোতে রয়েছে অনলাইন স্টোরেজ সুবিধা, যাতে করে ল্যাপটপ বা পিসি থেকে এসব ফাইলে অ্যাকসেস করা যায় খুব সহজেই। আর এ ই সুবিধাগুলোকে আরও বাড়িয়ে দিতে তৈরি করা হয়েছে অনলাইন স্টোরেজ ও ফাইল শেয়ারিংয়ের মোবাইলের অ্যাপস। উল্লেখযোগ্য ফাইল শেয়ারিং বা স্টোরেজ এর অ্যাপ এর মধ্যে – গুগলের GoogleDrive, মাইক্রোসফটের OneDrive, অ্যাপলের ICloud অন্যতম নির্ভরযোগ্য Apps। এসব প্রতিষ্ঠানের বাইরেও রয়েছে অনেক স্টোরেজ ও শেয়ারিং সার্ভিস যার মধ্যে Dropbox উল্লেখযোগ্য। Dropbox লিংকে গিয়ে ডাউনলোড করে নিতে পারবেন ড্রপবক্সের মোবাইল অ্যাপটি।

Ridmik Keyboard –

স্মার্টফোন গুলোতে নিজের ভাষা ইউজ করতে পারাটা একটি অত্যন্ত দরকা্রি বিষয় । ডিফল্ট যে কীবোর্ডটি রয়েছে সেটার ভাষা মূলত ইংরেজি। তাই স্মার্টফোনে বাংলা লিখতে চাইলে প্রয়োজন থার্ড-পার্টি কিবোর্ড অ্যাপস। বাংলা লেখার জন্য অত্যন্ত কার্যকরী একটি অ্যাপ হলো Ridmik Keyboard ( রিদমিক কিবোর্ড)। এর মাধ্যমে বাংলার সাথে সাথে ইংরেজিতেও লেখা যায়। বাংলা লেখার ক্ষেত্রে অভ্রের মতো Phonetic পদ্ধতির পাশাপাশি ইউনিজয় লেআউটেও লেখা যায় রিদমিক ব্যবহার করে। বাংলা লেখার স্মার্টফোন অ্যাপগুলোর মধ্যে জনপ্রিয়তাতেও রিদমিক অনেকটাই এগিয়ে। ডাউনলোড করে নিতে পারবেন Ridmik Keyboard

Contact Backup –

আমাদের দেশে ব্যাপক ভাবে স্মার্টফোনের ব্যবহার বেড়ে যাওয়ার সাথে সাথে স্মার্টফোন চুরির হারও বেড়ে গেছে। এ ছাড়া স্মার্টফোন নষ্ট হয়ে যাওয়া কিংবা পুরোনো স্মার্টফোনটি বদলে নতুন Configuration এর স্মার্টফোনের দিকে ঝুঁকে পড়ার প্রবণতাও রয়েছে। এসব ক্ষেত্রে আপনার হারিয়ে যাওয়া বা বদলে নেওয়ার আগের ফোনটির ফোনবুকের ব্যাকআপ অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। কারণ নতুন করে সব Contact সংগ্রহ করাটা অত্যন্ত ঝক্কির কাজ। Super Backup অ্যাপ্লিকেশনটি এক্ষেত্রে আপনার সহায় হয়ে উঠতে পারে। এটি আপনার Call log এবং ফোনবুকের ব্যাকআপ তৈরি করে রাখবে। ফলে ডিভাইস চুরি যাক, হারিয়ে ফেলেন বা বদলেই নেন, আপনার সব রেকর্ড থাকবে আপনারই। কন্ট্যাক্টের Backup এর সাথে সাথে SMS -এর ব্যাকআপও রাখতে সক্ষম অ্যাপটি। ডাউনলোড করতে পারবেন Super Backup

Photo Editor –

সেলফির এই জুগে ভালো ছবি তোলার পর কিছুটা এডিট না করলে চলে? স্মার্টফোনের ক্যামেরায় তোলা ছবিগুলোকে মনের মতো করে এডিটিং করতে ফটো এডিটিং অ্যাপগুলোর অনেক দরকার । Social Media’য় পোস্ট দেওয়ার আগে ছবিটিকে সবাই একটু ঠিকঠাক করে নিতে চায়। আর তাই এই ধরনের অ্যাপগুলো দারুণ জনপ্রিয়। Android বা Appstore এ ফটো এডিটর দিয়ে Search দিলে অনেক ভালো ভালো অ্যপস পাওয়া যাবে যেগুলো বিনামূল্যে ব্যবহারের সুযোগ রয়েছে। এই অ্যাপগুলোর সাথে বিভিন্ন ধরনের ফিল্টারও পাওয়া যায়। তবে সব Filter অবশ্য বিনামূল্যে পাওয়া যায় না। ফটো এডিটিং এসব অ্যাপসের মধ্যে Rating য়ে বেশ এগিয়ে রয়েছে Snap Speed অ্যাপটি। Android এবং iOS —উভয় অপারেটিং সিস্টেমের জন্যই রয়েছে এই অ্যাপটি। Photo Editor লিংকে গেলে পাওয়া যাবে অ্যাপসটি।

Antivirus –

স্মার্টফোন গুলোতে নতুন নতুন App প্রতিদিনই যুক্ত হচ্ছে। স্মার্টফোনের মধ্যে অনেক অ্যাপ’ই আসলে ছদ্মবেশী Virus। এ ছাড়াও স্মার্টফোনে বিভিন্ন সূত্র থেকেই চলে আসতে পারে Virus। পিসিকে ভাইরাসমুক্ত রাখাটা যেমন Challenging সময়ের সাথে সাথে স্মার্টফোনকে ভাইরাসমুক্ত রাখাও একটি চ্যালেঞ্জের বিষয়। স্মার্টফোনটিকে ভাইরাসমুক্ত রাখার জন্য ভালো একটি Antivirus App ব্যবহারের কোন বিকল্প নেই। স্মার্টফোনের অ্যান্টিভাইরাসগুলোর মধ্যে 360 Security বেশ ভালো Performance দেখিয়ে আসছে।
এর ডাউনলোড লিংক 360 Security

Call Blockeror Call Blacklist –

বিরক্তিকর কল এড়াতে আমাদের খুবই প্রয়োজনীয় একটি অ্যাপ Call Blocker যা সাধারণত ফোনের সাথে থাকে না কিংবা এই সুবিধা পেতে হলে অপারেটরের কাছে একটি নির্দিষ্ট চার্জের মাধ্যমে অ্যাকটিভ করতে হয়। আর সেটা প্রতি সপ্তাহে অথবা প্রতি মাসে নবায়ন করতে হয়। এর ব্যবহারেও থাকে কিছু লিমিটেশন বা নির্দিষ্টতা থাকে। আর তাই কলার ব্ল্যাকলিস্টের অ্যাপস হয়ে উঠতে পারে আপনার স্মার্টফোনের একটি জনপ্রিয় অ্যাপস। কারণ বিরক্তিকর কলারদের ব্লক করার জন্য শুধু প্রয়োজন গুগল প্লে স্টোরে গিয়ে অ্যাপসটি ডাউনলোড করে নেওয়া। অ্যাপসটি সাধারণত ফ্রি বা বিনামূল্যেই পাওয়া যায়। তবে বাড়তি কিছু সুবিধা পেতে প্রয়োজন হতে পারে প্রিমিয়াম সংস্করণের। Calls Blacklist or Call Blocker অ্যাপটি এই কাজের জন্য আপনার সমাধান হয়ে উঠতে পারে।