মানবদেহের ৯৯টি মজার তথ্য

June 8, 2017

– মানবদেহে একটিমাত্র স্থানে রক্ত পৌছে না সেটি হলো চোখের কর্নিয়া এটি বাতাস থেকে সরাসরি অঅক্সিজেন গ্রহন করে।
– মানবদেহে মস্তিষ্ক হার্ডডিক্স এর মত যার ধারন ক্ষমতা ৪ টেরাবাইট এর অধিক।
– একটি নবজাত শিশু একসময় এ একবারে ৭ মাসের শ্বাস-প্রশ্বাস গ্রহন করতে পারে।
– আপনার মাথার খুলি ২৯ টি আলাদা আলাদা হাঁড় দিয়ে তৈরী।
– নার্ভ ব্রেইন এ কমান্ড পাঠায় ঘন্টায় ২৭৪ কি.মি।
– একজন সাধারণ মানুষ এর ব্রেইন যত ইলেকট্রিকাল আদান প্রদান করে তা পুরো পৃথিবীর ফোন সংযোগ এর সমান।
– একটি সাধারন মানবদেহে যতটুকু পরিমান কার্বন থাকে তা দিয়ে ৯০০ টি পেন্সিল তৈরী সম্ভব ও যতটুকু পরিমান পটাশিয়াম থাকে তা দিয়ে একটি খেলনা কামান ফাটানো এবং যতটুকু পরিমান পানি থাকে তা দিয়ে ৫০ লিটার এর ব্যারেল ভর্তি সম্ভব।
– মানবদেহের হার্ট তার জীবন কালে ১৮২ মিলিয়ন বার রক্ত পাম্প করে।
– ৫০,০০০ কোষ মারা যাচ্ছে ও জন্ম নিচ্ছে আপনার শরীরে যখন আপনি এই বাক্যটি পড়ছেন।
– প্রত্যক মানুষ এর হাতের ছাপ আলাদা আলাদা এবং প্রত্যক আঙ্গুলের ছাপ ভিন্ন ভিন্ন।
– মহিলাদের হার্ট জোরে চলে পুরুষদের থেকে।
– Charles Osborne নামে একজন ভদ্রলোক জীবনে ৬৮ বছর ধরতে হিচকি তুলেছে!
– বাম-হাতের থেকে ডান-হাত ৯ বছর বেশি বাঁচে।
১৪.গড়ে ২/৩ জন মানুষ তাদের মাথা ডানে বাঁকা করে তাদের চুম্বন এর সময়।
১৫.গড়ে ১০০ জন এ ৯০ জন তাদের ঘুম এর মধ্য দেখা সপ্নকে ভুলে যান।
১৬.একজন মানুষের ব্লাড ভেসেল এর দৈর্ঘ্য ১০০,০০০ কি.মি।
১৭.একজন মানুষের শ্বাস-প্রশ্বাস এর গতি বেশি হয় গরমকাল এর থেকে শীতকালে
১৮.মানুষ একসাথে ১ কোটি নাম মনে রাখতে পারে।
১৯.আমরা আমাদের ৮০% তাপমাত্রা মাথায় ব্যায় করি।
২০.আমরা যখন লজ্জা পাই আমাদের পাকস্থলিও তখন লাল বর্ণ ধারন করে।
২১.আমদের শরীরের পানি যখন শরীরের ওজন এর তুলনায় ১% কমে আসে তখন আমাদের পিপাসা লাগে,৫% কমে গেলে রোগ ও ১০% কমে গেলে মৃত্যু ঘটতে পারে।
২২.মানবদেহে একই সাথে ৭০০ এনজাইম সক্রিয় থাকে।
২৩.মানুষই একমাত্র প্রানী যারা নিজের পিঠের বলে ঘুমাই।
২৪.একটি ৪ বছর এর বাচ্চা দিনে গড়ে ৪৫০ টি প্রশ্ম করে।
২৫.শুধু মানুষ নয় কোয়ালাদের ও আঙ্গুল এর ছাপ থাকে।
২৬.১% ব্যাক্টেরিয়া একজন মানুষকে অসুস্থ করতে যথেষ্ট।
২৭.পৃথিবীতে প্রতিটি জীবিত মানুষকে একটি ১০০০ সাইট মিটার এর কিউব এ আটানো যাবে।
২৮.বৈঙ্গানিক পেট এর আসল নাম হলো আম্বিলিউকাস।
২৯.দাঁত একমাত্র যারা একে অপরকে রোগাক্রান্ত করে না।
৩০.একটি সাধারন মানুষের গড়ে ৭ মিনিট লাগে ঘুমাতে।
৩১.ডান-হাতি মানুষ তাদের খাবার ডান মাড়ি দিয়ে চিবায় এবং বাম-হাতিরা বাম দিয়ে।
৩২.মাত্র ৭% মানুষ বাম-হাতি।
৩৩.আপেল এবং কলা একজন মানুষের ওজন কমাতে অনেক সাহায্য করে।
৩৪.একজন মানুষের পুরো জীবনকাল চুল বাড়তে দিলে তার দৈর্ঘ্য হবে ৭২৫ কি.মি।
৩৫.যদি প্রত্যকে তাদের কান নাড়ানোর ক্ষমতা রাখে তাহলে ১/৩ জন ১ টি কান নাড়ানোর ক্ষমতা রাখে।
৩৬.একজন মানুষের জীবনকালে দূর্ঘটনাবশত ৮ টি মাকড়শা খেয়ে ফেলে।
৩৭.একজন মানুষ এর দেহে পুরো ব্যাক্টেরিয়া এর ওজন ২ কেজি।
৩৮.৯৯% ক্যালসিয়াম একজন মানুষের দাঁতে থাকে।
৩৯.আঙ্গুলের ডগার থেকে একজন মানুষের ঠোঁট ১০০ গুন সংবেদনশীল।
৪০.চুম্বন এর সময় একজন মানুষের হার্টবিট ১০০ বা তার বেশি হয় প্রতি মিনিটে।
৪১.আপনার খাবার চিবানোর ক্ষমতা ১৯৫ কিলোগ্রাম এর বেশি।
৪২.২৭৮ টই ব্যাক্টেরিয়া একে অপরের মধ্য যাচ্ছে যখন তারা চুম্বন করছে কিন্তু এর মধ্য ৯৫% ক্ষতিকারক নয়।
৪৩.পারথেনোবিয়া ভার্জিন এর প্রতীক।
৪৪.আপনার শরীরে যদি সকল লৌহ একত্রিত করেন তাহলে আপনি একটি লোহার চাকায় পরিনত হবেন।
৪৫.ঠাণ্ডা জ্বরে ১০০ টি ভিন্ন ভিন্ন ভাইরাস যুক্ত থাকে।
৪৬.একজন মানুষ যদি নিয়মিত চুম্নন করে তার থেকেও খারাপ হলো চুইংগাম চিবানো।
৪৭.আপনি ১৫০ ক্যালরি কমাতে পারবেন প্রতি ঘন্টায় যদি আপনি সজরে আপনার মাথা দেওয়াল এ বাড়ি লাগাতে পারেন।
৪৮.মানুষই একমাএ প্রানী যে সোজা লাইনে চলতে সক্ষম।
৪৯.মানব দেহের চামড়া তার সারাজীবনে ১০০০ বার বা তার বেশি বার পাল্টাই।
৫০.যে ব্যাক্তি প্রতিদিন এক প্যাকেট সিগারেট খায় তার ১/২ কাপ টার খাওয়ার সমান এক বছরে।
৫১.নারীরা পুরুষদের তুলনায় চোখের পাতা কম ফেলে।
৫২. অ্যাপাটেট, আরাগোনাইট, ক্যালসাইট, এবং ক্রিস্টবেলিট, মানব দেহের গঠন মাত্র চারটি খনিজ।
৫৩.চুম্বন এ ব্রেইন থেকে একই হরমোন নিস্রিত হয় যেটিতে স্কাই ডাইভ,ও বন্দুক থেকে গুলি ছোড়ার সময় হয়।
৫৪.পুরুষদের বৃদ্ধির হার যদি ১.৩ হয় তাহলে মহিলাদের ১.২
৫৫.হাতের নখ পায়ের থেকে ৪ গুন তাড়াতাড়ি বড় হয়।
৫৬.নীল চোখের মানুষ অনেক সংবেদনশীল হয়।
৫৭.মানবদেহকে ৯০ মি/সে এর বেশি জোরে মুভ করা সম্ভব নয়।
৫৮.১০০,০০০ কেমিকেল রিএকশন হয় প্রতি সেকেন্ড এ মানবদেহে।
৫৯.প্রত্যক এর পিঠে ডিম্পল রয়েছে কিন্তু কিছু মানুষ এর সেটি প্রকাশ পাই।
৬০.যমজ শিশুদের সব এক হওয়া সত্তেও তাদের দাঁত জোড়া এক হবে না।
৬১.মানুষ এর শ্বাসযন্ত্র একটি টেনিস কোর্ট এর সমান।
৬২.মানুষ তার পুরো জীবনের ২ সপ্তাহ চুম্বন করতে ব্যায় করে।
৬৩.পুরুষের চুলের থেকে মুখের দাঁড়ি তাড়াতাড়ি বড় হয়।
৬৪. শ্বেত রক্তকণিকা মানবদেহে ২-৪ দিন বাঁচে।
৬৫.সবচেয়ে মানুষের মজবুত পেশি হলো জিহ্বা।
৬৬.একজন পূর্ণবয়ষ্ক ব্যাক্তির হার্ট এর ওজন ২২০-২৬০ গ্রাম।
৬৭.জন্মের সময় একটি শিশুর ব্রেইন এ ১৪ বিলিয়ন কোষ থাকে।
৬৮.জন্মের সময় একটি শিশুর ৩০০ টি হাঁড় থাকে কিন্তু সাধারন মানুষ এর ২০৬ টি।
৬৯.মানুষ এর সবচেয়ে বড় নাড়ি হলো ২.৫ মিটার।
৭০.আপনার ডান ফুসফুস বাম ফুসফুস এর থেকে বেশি বাতাস নিতে পারে।
৭১.একজন পূর্নবয়ষ্ক মানুষ দিনে ২৩,০০০ অন্ত:শ্বসন ও নি:সারণ করে।
৭২.মানুষের সবথেকে ছোট কোষ হলো স্পার্ম।
৭৩.মানুষের মুখে ৪০,০০০ ব্যাক্টেরিয়া থাকে।
৭৪.মানুষের ২০০০ স্বাদ ইন্দিয় রয়েছে।
৭৫.মানুষের চোখ ১০ মিলিয়ন রং দেখতে পায়।
৭৬.আনন্দ এর জন্য ব্রেইন এর যেই কেমিকেল প্রবাহিত হয় তা চকলেট এও বিদ্যমান।
৭৭.মানবদেহে যে গতিতে রক্ত প্রবাহিত হয় তা দিয়ে ৪ তলায় পানি তোলার সমান।
৭৮.একজন মানুষ অনেক ক্যালরি টিভি দেখে খরচ করে।
৭৯.বসন্তে শিশুরা দ্রুত বৃদ্ধি পাই।
৮০.প্রতি বছর ২ মিলিয়ন বাম-হাতি মানুষ মারা যাই।
৮১.৩০০ জনে ১ জন এমন থাকে যিনি মুখ দিয়েই মানুষকে সন্তুষ্ট করতে পারে।
৮২.একজন যখন হাঁসে তখন সে ১৭ টি মাসল ব্যাবহার করে ও যখন ভ্রু+-কুচকাই তখন ৪৩ টি ব্যাবহার করে।
৮৩.৬০ বছে বয়স পর মানুষ তার খাদ্যরুচি অনেকটা হারিয়ে ফেলে।
৮৪.প্লেন চলাকালীন মানুষের চুল দ্রুত বাড়ে।
৮৫.১% মানুষ ইনফ্রা ও আল্ট্রা রেড লাইট দেখতে পারে।
৮৬.আপনি একটি বদ্ধ ঘরে আটকা পড়লে বাতাসের অভাবে মারা যাবেন না আপনি কার্বন-ডাইঅক্সাইড এর বিষ ক্রিয়ায় মারা যাবেন।
৮৭.২ বিলিয়ন মানুষ এর মধ্য ১ জনই ১১৬ বছর বাঁচে।
৮৮.একজন ২৫ ঘন্টাই ৪৮০০ টি বাক্য বলে।
৮৯.রেটিনাতে ১৩৭ মিলিয়ন লাইন সেস্ন কোষ রয়েছে।
৯০.চোখ জন্মের সময় যেমন থাকে ততটুকুই বাড়ে কিন্তু কান ও নাক বাড়তেই থাকে।
৯১.মানুষ সন্ধার চেয়ে সকালে বেশি লম্বা থাকে।
৯২.আপনার চোখ এর লক্ষ স্থির এর জন্য আপনার মাসল কাজ করে।
৯৩.বাতাসে অনেক বিস্ফরক পদার্থ বিদ্যমান।
৯৪.হার্ট এটার্ক সপ্তাহে সোমবারে হওয়ার সম্ভবনা অনেক বেশি।
৯৫.হাঁড় স্টিল এর থেকে ৫ গুন বেশি শক্ত।
৯৬.হাঁচি দেওয়ার সময় চোখ খোলা রাখা অসম্ভব।
৯৭.এক সপ্তাহ না ঘুমালে মৃত্যু অবধারিত।
৯৮.পায়ের নখ মানুষের বংশগত।
৯৯.মানুষের গড় আয়ু ২,৪৭৫,৫৭৬,০০০ সেকেন্ড। এই সময়ের মধ্যে গড়ে ১২৩,২০৫,৭৫০ টি শব্দ বলা হয় ও আনুমানিক ৪,২৩৯ বার সঙ্গমে লিপ্ত হয়।