ইউএস মিলিটারির ফাইটার জেট থেকে উড়ছে ১০৩টি ছোট ড্রোন

01/06/2017

ক্যালিফোর্নিয়াতে তাদের এক পরীক্ষায় ফাইটার জেট থেকে ১০৩টি ছোট ড্রোন ছাড়ে । গত অক্টবরে তিনটি F/A-18 Super Hornets জেট ব্যবহার করে এই পার্ডিক্স ড্রোন গুলো ছাড়া হয়। ১২ ইঞ্চি (৩০ সে.মি.) দৈর্ঘ্যের পাখা বিশিষ্ট এই ড্রোনগুলো স্বেচ্ছায় কাজ করতে সক্ষম আর একটি মাত্র ব্রেন শেয়ার করে চলে। কজন মিলিটারি এনালিস্ট বলেন যে এই ডিভাইসগুলো এয়ার ডিফেন্স সিস্টেম এড়িয়ে চলতে সক্ষম এবং এগুলো মূলত ব্যবহার করা হবে নজরদারি কাজে। ডিপার্টমেন্ট অফ ডিফেন্স এই পরীক্ষণের ভিডিওটি প্রকাশ করে।

স্ট্র্যাটেজিক কেপাবিলিটিস অফিস এর ডাইরেক্টর, উইলিয়াম রোপার বলেন, “পার্ডিক্স প্রি-প্রোগ্রামড ডিভাইস না, এরা একটাই কিন্তু সকলের মধ্যে বিভক্ত ব্রেনের মাধ্যমে সিদ্ধান্ত গ্রহণ করে এবং একে অপরের সাথে মানিয়ে নেওয়ার মাধ্যমে দলবদ্ধ সত্ত্বার ন্যায় চলে।”

প্রত্যেক পার্ডিক্স একে ওপরের সাথে যোগাযোগ করে এবং একে ওপরের সহযোগিতা করে চলার কারণে তাদের দলের কোন নির্দিষ্ট নেতা নেই আর তাই কোন নতুন ড্রোন দলে ঢুকলে কিংবা বের হয়ে গেলে তারা সহজেই তা মানিয়ে নিতে পারে।
এই ড্রোনগুলো প্রথমে ডিজাইন করে Massachusetts Institute of Technology এর কিছু ইঞ্জিনিয়ারিং ছাত্র আর এটা প্রথম পরিমার্জন করে মিলিটারিতে পরীক্ষার জন্য ব্যবহৃত হয় ২০১৩ সালে।

এলিজাবেথ কুইনটানা, Royal United Services Institute এর একজন গবেষক বলেন,“যখন এয়ার ডিফেন্স সিস্টেম যা, অনেক বড় আর দ্রুতগতি সম্পন্ন এয়ারক্রাফ্ট সনাক্ত করতে সক্ষম, এর থেকে রেহাই পাওয়ার চিন্তা মাথায় আসে তখন এই ছোট, সস্তা,সহজেই নষ্ট করে ফেলা যায় এমন ড্রোনগুলো একটি সমাধান হতে পারে।” তিনি আরো বলেন যে খুব শীঘ্রই নজরদারির কাজে এই ড্রোনগুলো ব্যবহৃত হবে। মে মাসে ইউএস নেভি একটা সিস্টেম পরীক্ষা করে যা ক্রমাগত ড্রোন ডিপ্লয় করতে পারে।

এশিয়ান কম্পিটিশন

গত বছরের শেষের দিকে, চাইনিজরাও একটা বড় আকারে স্থায়ী পাখা বিশিষ্ট ড্রোনের দল প্রদর্শন করে।
মিস কুইনটানা জানিয়েছেন যে চীনের ড্রোন তৈরী করার জন্য প্রয়োজনীয় যথেষ্ট ইলেক্ট্রনিকস সামগ্রী জোগানোর সংস্থান আছে।  বিশ্বে ড্রোনের বাজারে সব থেকে বড় চাইনিজ কোম্পানি DJI, BBC তে দেয়া এক বিবৃতিতে জানায়, তাদের দেশে অসাধারণ অনেক অভিজ্ঞ লোক রয়েছে। বিষয়টা খুবই আকর্ষণীয় হতে যাচ্ছে কারণ এটা শুধু নির্ভর করছে না যে কার কাছে কত বড় ড্রোনের দল আছে। বরং এও দেখতে হবে যে কাদের কৌশল বেশি কার্যকরী হবে।

Source – BBC

Amir Hamza Tur
TechNinja