ই-কমার্সকে আপামর জনসাধারণের কাছে জনপ্রিয় করে তোলার লক্ষ্যে ই-ক্যাব

March 29, 2016

বাংলাদেশে ই-কমার্স চালু হয় বেশ কয়েক বছর হয়ে গিয়েছে কিন্তু ই-কমার্স সেক্টরের সেরকম উল্লেখযোগ্য অগ্রগতি সাধিত হয়নি। এর অন্যতম প্রধান কারণ হচ্ছে এ খাতে কোন অ্যাসোসিয়েশন তৈরি হয়নি যা সরকার এবং সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের কাছে ই-কমার্স সম্ভাবনা, এ খাতে বিরাজমান সমস্যা এবং তা সমাধানের লক্ষ্যে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেবার ব্যাপারে কাজ করে যাবে। এ অভাব থেকেই ২০১৪ সালে ই-কমার্স অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ (ই-ক্যাব) গঠন করা হয়।

 আনুষ্ঠানিক ঘোষণার পরে ২০১৪ সালের ২১ নভেম্বর ই-ক্যাব এর কার্যনির্বাহী পরিষদের সদস্যবৃন্দ চট্টগ্রামে যায়। এ ভ্রমণের উদ্দেশ্য ছিল চট্টগ্রামের স্থানীয় ব্যবসায়ীদের কাছ ই-কমার্সকে তুলে ধরা এবং ই-কমার্স উদ্যোক্তাদের সাথে মত বিনিময় করা। পরে ই-ক্যাব নেতৃবৃন্দ চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসকের সঙ্গে সৌজন্য সাক্ষাৎ করেন।

২০১৫ সালের ডিসেম্বরে চালু করা হয় ই-কমার্স সেবা কেন্দ্র।  যারা ই-কমার্স খাতে নতুন ব্যবসা করতে চান, তারা এ সেবাকেন্দ্র থেকে বিভিন্ন সহযোগিতা প্রদানের লক্ষ্যে এ সেবাকেন্দ্র স্থাপিত হয়। বাংলাদেশের জনসংখ্যার বড় অংশই মফস্বল শহর এবং গ্রামে বাস করেন। এসব জায়গায় অনেক উদ্যমী তরুণ-তরুণী রয়েছেন, যারা ই-কমার্স ব্যবসায় শুরু করতে চান, কিন্তু কী করবে তা জানে না। ই-ক্যাবই বাংলাদেশের প্রথম ট্রেড অ্যাসোসিয়েশন, যারা প্রথমবারের মতো এ ধরনের সেবাকেন্দ্র খুলে সেবা দিতে যাচ্ছে। দেশের যেকোনো প্রান্ত থেকে যেকেউ এ সেবাকেন্দ্রে যোগাযোগ করে ই-কমার্স সম্পর্কে বিনামূল্যে বিভিন্ন তথ্য জানতে পারবেন। নতুন উদ্যোক্তারা ই-কমার্স ব্যবসায় শুরুর সব ধরনের সহযোগিতা পাবেন, পেমেন্ট গেটওয়ে ও ডেলিভারি সার্ভিস সম্পর্কে জানতে পারবেন, যেকোনো অভিযোগ বা সমস্যা নিয়ে কথা বলতে পারবেন এবং ওয়েবসাইট ডেভেলপমেন্টের জন্য সব ধরনের টেকনিক্যাল সহযোগিতা পাবেন।’

ই-কমার্সকে আপামর জনসাধারণের কাছে জনপ্রিয় করে তোলার লক্ষ্যে ই-ক্যাব ২০১৫ সালকে ই-কমার্স বছর হিসেবে উদযাপন করার ঘোষণা দেয়। বছর জুড়ে বিভিন্ন অনুষ্ঠানের আয়োজন, প্রিন্ট এবং ইলেক্ট্রনিক মিডিয়াতে দেশীয় ই-কমার্সকে তুলে ধরার পরিকল্পনা নেয়। ই-কমার্সকে জনপ্রিয় করে তোলার লক্ষ্যে এপ্রিল মাসে ই-কমার্স মাস উদযাপন করা হয় এবং ৭ এপ্রিল ই-কমার্স দিবস উদযাপন করা হয়। ই-কমার্স দিবস উদযাপন উপলক্ষে ধানমণ্ডির স্টার্ট আপ রেস্টুরেন্ট অ্যাণ্ড ক্যাফেতে সন্ধ্যা ৬টা থেকে এক অনুষ্ঠানের আয়োজন করে ই-ক্যাব।

ই-কমার্স প্রতিষ্ঠানগুলোর সংগঠন হিসেবে ২০১৫ সালের জুলাই মাসে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের অনুমোদন লাভ করে ই-ক্যাব। এর মাধ্যমে ই-ক্যাব সরকারের স্বীকৃতি প্রাপ্ত একমাত্র ট্রেড অ্যাসোসিয়েশন হিসেবে প্রতিষ্ঠা পায়।

২০১৫ সালের অক্টোবর মাসে ব্যবসায়ীদের শীর্ষ সংগঠন দ্য ফেডারেশন অব বাংলাদেশ চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ড্রাস্ট্রি (এফবিসিসিআই) এর সদস্যপদ লাভ করে ই-ক্যাব। এফবিসিসিআই মেম্বারশীপ পাওয়ার মধ্য দিয়ে একটি পূর্ণাঙ্গ ট্রেড অর্গানাইজেশনের সবধরনের আনুষ্ঠানিকতা পূর্ণ করে।

ইক্যাব ওয়েবসাইট – www.e-cab.net
ই-ক্যাব সেবাকেন্দ্রের যোগাযোগ নম্বর  : ০৯৬১৩ ২২২ ৩৩৩

Mehanz Nabin – Tech-business