পেশা হিসেবে যদি শুরু করতে চান ইউএক্স ডিজাইন!

08/31/2015

চাকুরি যখন সোনার হরিণের মত দূর্লভ তখন আমরা কথা বলছি ইউএক্স ডিজাইনের মত একটা সৃজনশীল পেশার ব্যাপারে। অভিজ্ঞতা, সৃজনশীলতা, ধৈর্য ও কঠোর পরিশ্রম আপনাকে তুলে দিতে পারে এক অনন্য উচ্চতায়। ডিজিটাল প্রোডাক্ট তো বটেই অন্যান্য সকল পণ্যের ক্ষেত্রেই যেহেতু ইউএক্স ডিজাইনের ভূমিকা অনস্বীকার্য তাই এই পেশার চাহিদাটাও অনেক বেশি। আপনার ইচ্ছা শক্তিই পারে আপনাকে আপনার কাংক্ষিত লক্ষ্যে পৌঁছে দিতে। ইউএক্স ডিজাইন ক্যারিয়ার নিয়ে নতুনদের মাঝে কিছু সাধারণ জিজ্ঞাসা বা কৌতুহল থাকে। এই লেখায় সেরকম দুই একটা বিষয় নিয়ে আলোকপাত করবার চেষ্টা করব।

ক্যারিয়ার হিসেবে ইউএক্স ডিজাইন শুরু করা কেন তুলনামূলক সহজ?

আপনি খুব সহজেই ইউএক্স ডিজাইনকে পেশা হিসেবে নিতে পারেন যদি আপনার কিছু অভিজ্ঞতা থাকে। অভিজ্ঞতাটা যে সরাসরি ইউএক্স ডিজাইন কেন্দ্রীকই হতে হবে ব্যাপারটা তা না। যদি আপনি কোন সফটওয়্যার ফার্মে চাকুরিরত অবস্থায় থাকেন বা সফটওয়্যার ডিজাইন প্রোজেক্টের সাথে কাজ করার অভিজ্ঞতা থাকে সেটাও আপনার ইউএক্স ডিজাইন ক্যারিয়ারের জন্য ইতিবাচক ভূমিকা পালন করবে। আপনি যদি একজন Web Developer , Visual ডিজাইনার, Project ম্যানেজার, Digital প্রডিউসার, Online মার্কেটার বা Content ম্যানেজার হন তাহলে আপনি অনায়েসে ইউএক্স ডিজাইনিং এ ক্যারিয়ার গড়তে পারেন। কেননা উপরোল্লেখিত প্রতিটা সেক্টরেই ইউএক্স ডিজাইনারের কাজের ক্ষেত্র রয়েছে। আর যদি সফটওয়্যার ডেভেলপমেন্ট বা সফটওয়্যার ইঞ্জিনিয়ারিং এর উপর ছোটখাট একটা ডিগ্রিও থাকে এটা আপনাকে এই পেশা শুরু করতে অনেক বেশি সাহায্য করবে।

সফটওয়্যার বা যে কোন পণ্য তৈরির পরিকল্পনা থেকে শুরু করে এর বাজারজাতকরণ পর্যন্ত প্রতিটা জায়গায়ই ইউএক্স ডিজাইনার তার ভূমিকা পালন করেন। একজন UX ডিজাইনারের কাজ হচ্ছে সফটওয়্যার ডেভেলপমেন্টের সবগুলো পর্যায় সম্পর্কে বুঝা এবং ব্যবয়ারকারীর মনস্তাত্ত্বিক জায়গা, তার আবেগ, পণ্যটি ব্যবহারের পরে তার অনুভূতি ইত্যাদি বিষয়ের উপর গবেষণা ও পরিসংখ্যান লব্ধ তথ্যের উপর ভিত্তি করে একটা কার্যকরী সমাধান বের করা। তিনি তার দক্ষতা ও অভিজ্ঞতাকে কাজে লাগিয়ে উপরের সবগুলো ক্যাটাগরির উপর ইউএক্স সলিউশন দিবেন। যেন পণ্যটির ব্যবহারযোগ্যতা (usability) থাকে পরিপূর্ণ।

সফটওয়্যার ডেভেলপমেন্ট সম্পর্কে বা উপরোল্লেখিত বিষয়গুলো আপনার কাছে পরিচিত হলে কিছুটা অভিজ্ঞতা অর্জনের জন্য ইউজার এক্সপেরিয়েন্সের উপর নিজেই ছোটখাট এক্সপেরিমেন্ট করতে পারেন। যদি আপনার কাছে একটা রেডি সফটওয়্যার প্রোজেক্ট থাকে তাহলে সেটা কয়েকজন ইউজারকে দিয়ে টেস্ট করিয়ে ইউএক্স সম্পর্কে কিছুটা ধারণা নিতে পারেন। ব্যাপারটা এমন হতে পারে যে, ইউজাররা আপনার সফটওয়্যার ব্যবহার করবে আর কম্পিউটারের স্ক্রীনটা রেকর্ড হতে থাকবে। এরকম করে কয়েকজন ইউজারের রেকর্ড করা ভিডিও দেখলে সহজেই ধরে ফেলা যাবে ইউজার সফটওয়্যারটা ব্যবহার করতে স্বচ্ছন্দ বোধ করছে কিনা। বা সবগুলো অপশন তারা দেখেই বুঝে ফেলতে পারছে কিন, নাকি তারা দ্বিধান্বিত? Software Development জ্ঞান অর্জনের পরে এটাই হতে পারে ইউএক্স ডিজাইনার হবার জন্য আপনার প্রথম পদক্ষেপ।

ইউএক্স ডিজাইনের উপর কোন অভিজ্ঞতা না থাকলে চাকুরি পাওয়া সম্ভব?

এটা ঠিক যে, এই পেশাতেও অভিজ্ঞতা থাকলে খুব সহজেই কেউ উন্নতির চরম শিখরে আরোহন করতে পারে। কিন্তু যারা এই পেশায় নতুন তাদের জন্য এটা অন্যান্য পেশার মতই কিছুটা চ্যালেঞ্জিং। তারপরেও তাদের ভাল করার সুযোগ আছে। যদি তাদের ঝুলিতে ইউএক্স ডিজাইনের উপর একটা ডিগ্রি থাকে, অথবা Computer Science বা Human Computer Interaction এর উপর কোন পড়াশোনা থাকে। কম্পিউটার সায়েন্সের ডিগ্রি আবশ্যক নয়, এমন কি যে কেউ ব্যবসায় শিক্ষা বিভাগ থেকে সম্মান ডিগ্রি নিয়েও এই পেশায় আসতে পারেন।

ইউএক্স ডিজাইনার হিসেবে ক্যারিয়ার শুরু করার জন্য কয়েকটি ধাপ এখানে উল্লেখ করা যেতে পারে। যেগুলো অনুসরণ করে যে কেউ এ পেশায় আত্মনিয়োগ করতে সক্ষম হবেন।

রাতারাতি ফলপ্রাপ্তির মানসিকতা বর্জনঃ

যেহেতু এটি একটি সৃজনশীল পেশা তাই একজন শিল্পীর মত এই পেশার মানুষটিকেও কিছুটা ধৈর্য ধরতে হবে। প্রচুর পড়াশোনা আর সময়কে বিনিয়োগ করতে হবে ভবিষ্যতের দিকে তাকিয়ে। নিজেকে প্রস্তুত করতে হবে দীর্ঘ পড়াশোনার জন্য। এটা লাইফ টাইম লার্নিং এর মত একটা বিষয়। নিজের উপর আস্থা রাখুন, হাতে কয়েক মাস সময় নিয়ে লেগে পড়ুন কাজে। সফলতা আসবেই!

ইউএক্স ডিজাইনের কোর্সঃ

অযুত সম্ভাবনার এই সেক্টর সম্পর্কে প্রাতিষ্ঠানিক কিছু শিক্ষারও প্রয়োজন রয়েছে। আপনি কম্পিউটার সায়েন্স, আইটি বা অন্য যে কোন ব্যাকগ্রাউন্ডেরই হন না কেন ইউএক্স ডিজাইনের উপর করে ফেলুন সাধ্যমত একটা শর্ট অথবা লং কোর্স। এটা আপনার চলার পথের পাথেয় হবে। জটিল বিষয় সম্পর্কে সহজে বুঝতে সাহায্য করবে। পরবর্তীতে নিজে নিজে পড়াশোনা ও চিন্তা-গবেষণার করার জন্য নিজেকে তৈরি করতে পারেন, একটা মান সম্পন্ন প্রশিক্ষণের মাধ্যমেই। এই প্রশিক্ষণের মাধ্যমে ইউএক্স বিষয়ে বিশেষজ্ঞদের সংস্পর্শে আসতে পারবেন। তাদের সাথে চেনাজানার সুবাদে আপনার যোগ্যতা যে কোন প্রতিষ্ঠানে প্রদর্শন করার সুযোগ সহজ হবে। হয়ত সুযোগ হয়ে যেতে পারে কোন এক্সপার্টের অধীনে শিক্ষানবীশ (Intern) হিসেবে কাজ করার।

প্রচুর পড়াশোনা ও ব্লগিংঃ

কোর্স করতে থাকুন, সাথে চালাতে থাকুন সংশ্লিষ্ট বিষয়ের উপর বিস্তর পড়াশোনা। ব্যাসিক HTML, CSS শিখে ফেলুন। কেননা এগুলো UI (User Interface) এর জন্য ব্যবহৃত হয়। ইউজার এক্সপেরিয়েন্স নিয়ে গবেষণার জন্য ইউজার ইন্টারফেসের ধারণা থাকাটা জরুরি। ইউএক্স এর উপর অভিজ্ঞদের লেখা আর্টিকেল পড়ুন, নিজে চিন্তা করে বের করার চেষ্টা করুন কিভাবে একজন ব্যবহারকারীকে সর্বোচ্চ সুবিধা দেয়া যায়। বিভিন্ন ওয়েবসাইটে থাকা পরিসংখ্যানের তথ্য-উপাত্ত বিশ্লেষণ করুন। নিজের পরিচিত বা আসেপাশের মানুষের সাথে তাদের সফটওয়্যার ব্যাবহারের অভিজ্ঞতার ব্যাপারে কথা বলুন, যারা ইউএক্স সম্পর্কে কোন কারিগরী জ্ঞান (technical knowledge) রাখেন না।

এরপর যে কাজটা করতে পারেন সেটা হচ্ছে, নিজের একটা ব্লগসাইট খুলে ফেলুন। বা ইউএক্স সংক্রান্ত কোন ব্লগে আপনার অনুভূতি, চিন্তা বা গবেষণার ব্যাপারে লেখালেখি করুন। এটা আপনাকে পরিচিত করে তুলতে পারে এই বিষয়ে অভিজ্ঞদের কাছে। আপনার লেখা বা গবেষণা সম্পর্কে বিভিন্ন জনের মতামত পেয়ে সেটাকে আরো উন্নত করতে পারবেন। এই লেখালেখির মাধ্যমেও সুযোগ হয়ে যেতে পারে কোন সুনামধন্য প্রতিষ্ঠানে ইউএক্স এক্সপার্ট হিসেবে চাকুরির সুযোগ।

পরিশেষে আপনাকে স্বাগত জানাচ্ছি ইউএক্স ডিজাইনের এই সম্মানজনক ও সৃষ্টিশীল কাজের জগতে। যার কোন নির্দিষ্ট সীমারেখা নাই। যার গ্রহনযোগ্যতা বা কাজের ক্ষেত্র সংকুচিত হবার কোনই আশংকা নেই।

ইউএক্স সম্পর্কে সুন্দর একটা ইংরেজি উক্তি  –

“There are always plenty of new and interesting areas to explore.”


Tech Analyst
– Techmorich